বাংলা ব্লগ । Bangla Blog

এভারগ্রিন বাংলা ব্লগ | Evergreen Bangla Blog

অনেকদিন পরে ফেসবুকে ফেসফেচানি

১. ‘আলুর চপ’ কিভাবে যেন খবর পেয়েছে আমার জব নেই। সেই থেকে কাঁটা ঘায়ে নুনের ছিটার মত নিয়মিতভাবে বিভিন্ন প্রকার জব, জবের ইন্টারভিউ বা ট্রেইনিং-এর বিভিন্ন প্রিপারেশন কোর্সের নিউজ লেটার পাঠিয়ে যাচ্ছে। কিন্তু তাদেরকে কিভাবে বুঝাই তারা যে গায়ে পড়ে আমার এত উপকার করতে চাচ্ছে তার বিন্দুমাত্র যোগ্য আমি নই।
তাদের ওয়েবসাইটে কবে ঢুকেছিলাম, কবে নিউজ লেটার সাবস্ক্রাইব করেছিলাম, কিছুই মনে পড়ে না। দেশে এরকম একটা জব সাইট আছে, সেটাই জানতাম না। মনে পড়ল একসময় আলু ব্লগে আলুপোড়া খেতে যেতাম। নিউজ সাইটেও মাঝে মাঝে কমেন্ট করতাম। ইমেইল অ্যাড্রেশ হয়তো সেখান থেকেই নিয়েছে, এবং এতদিনে সেই আলুপোড়া খাওয়ার শোধ নিচ্ছে।
প্রথম দিকে এগুলো এমনিতেই ডিলিট করে দিতাম। পরে একদিন সময় করে একটা ওপেন করে দেখি নিচের দিকে আনসাবস্ক্রাইব করার লিঙ্ক আছে। করলাম। তাতে ফলাফল হলো আরো ভয়াবহ। তারপর থেকে প্রায় প্রতিদিন নিউজ লেটার পাঠাচ্ছে। আরেকবার বাঙালীদের উচ্চ মাত্রার সেন্স অফ হিউমারের পরিচয় পেলাম।

২. জব খোঁজা বাদ দিয়ে বসে বসে সরকারের আনএমপ্লোয়মেন্ট বেনিফিট খাচ্ছি। ঠিক করেছি যতদিন এটা পাব ততদিন জবের ধারে কাছেও যাব না। আগের জবটা অনেকটদিন ধরে করছিলাম। সত্যি কথা বলতে, শেষের দিকে বোরিংই লাগছিল। এমনিতেই চলে যাওয়াতে শাপে বর হয়েছে, বেনিফিটটা পাচ্ছি। তবে আগের লাক্সারি লাইফটাও চলে গেছে। বালিকাদের আর ইনকল করতে পারছি না। সব আউটকল। শীতের মধ্যে এই এক মহা ঝামেলা। কেননা নিজের ফ্লাট ছেড়ে দিয়ে উঠতে হয়েছে ছোট ভাইদের বাসায় তাদের সোফাটা দখল করে। এরা কয়েকজন মিলে শেয়ার করে থাকে।
এলাকাটা মন্দ নয়। বাইরে প্রচুর রেস্টুরেন্ট। মাসের প্রথম দিকে একেক দিন একেক রেস্টুরেন্টের খাবার টেস্ট করছি। টাকা ফুরিয়ে এলে নিজের টুকটাক খাবার নিজেই রান্না করে নিই। আজ অর্ডার দিয়েছিলাম আফগান রেস্টুরেন্ট থেকে চিকেন। খেয়ে-দেয়ে বিকেলের দিকে ঘুমিয়ে পড়েছিলাম। একটু আগে উঠেছি। আজ রাতে আর সহজে ঘুম আসবে না। কিন্তু ওয়েদার খারাপ। বাইরে বের হওয়া টাফ হবে। নইলে ননলি নাইট।

৩. অনেকে বলেন দেশের বাইরে গেলে নাকি দেশপ্রেম বাড়ে। ব্যাপারটা আমি এখনো ঠিক বুঝতে পারিনি। দেশের অবস্থা শুনছি তত ভালো নয়, কিন্তু আশেপাশে যারা আছে, তাদের তো তেমন কোনো মাথাব্যথা দেখি না। সবাই ঠিক সময়েই খেয়েদেয়ে কাজে যাচ্ছে, ফিরে এসে আবার খাচ্ছে, টিভি দেখছে, পরের দিন কাজ থাকলে তাড়াতাড়ি আবার ঘুমিয়ে পড়ছে। আমার না হয় দেশে কেউ নাই, কিন্তু অন্যদের তো আছে। তাদেরই যখন কোন দুশ্চিন্তা নাই, তখন আমি অযথা কী ভাবব।
দেশের মানুষ আর বাঙালী নেই, প্রায় সব মুসলমান হয়ে গেছে। নতুন কী আর হবে। অন্যান্য মুসলিমপ্রধান দেশে যা হয়, নিয়ম করে ঘুরেফিরে আমাদের দেশেও তাই হবে। এই তো।

জানুয়ারি ১১, ২০১৪ | ৭১৪ বার পঠিত | মন্তব্য করুন

লিখেছেন : শ্রাবণ আকাশ

শ্রাবণ আকাশ শব্দ দু'টির সাথে আমার মিলটা হলো- কোন কারণ ছাড়াই হঠাত্‌ আমার মনের অবস্থাটা বর্ষাকালের মত হয়ে যায়। বর্ণে ধূসর, গন্ধে শিশির ধোঁয়া শিউলি ঢাকা ভোর, সময়ে গোধূ্লি... ভালো লাগে মেঠোপথ রঙধনু কাশফুল জোসনা রাত... নদীর ঢেউ পাখির গান খোলা হাওয়া বর্ষা রাত... কাঁচা আমের গন্ধ মাখা অলস সারা দুপুর বেলা... বিকেল হলে মেঘের ফাঁকে সূর্যরশ্মির লুকোচুরি খেলা... আরো আছে পূর্ণিমা চাঁদ...একটু হলেও অমাবশ্যা রাত...

%d bloggers like this: