মনে পড়ছে খুব

অবাক কাণ্ড! কাল সারারাত বৃষ্টি হয়েছে, কিন্তু ভোরে ঘুম থেকে না ওঠা অবধি টের পাইনি। ভোরের পরে আর বৃষ্টি হয়নি। বাইরে ভেজা দেখে দৌঁডাতে যাব কিনা, দোমনা করছিলাম। ওয়েদার রিপোর্টে দেখি টেম্পারেচার ৬০-র কাছাকাছি। ফাটাফাটি। আজ যদি না যাই তো কলঙ্ক হবে!

পার্কের মাঠের মাঝখানের ঘাস ভিজে থাকায় চারদিকের ট্রাকে দৌঁড়াতে শুরু করি। প্রথম দুবারে খেয়াল হয়নি। পরের বার দেখি কেঁচো! ঘাসের মাঠ খুব ভিজা হওয়াতে মাঠ থেকে ট্রাকের উপর দিয়ে অন্যপাশে যাওয়ার চেষ্টা করছে।

মাছ ধরার কথা ভাবছিলাম। পুকুরে যখন বড়ছি দিয়ে মাছ ধরতাম, তখন সারা এলাকা তন্ন-তন্ন করে খুঁজতাম। এখানে এসে যখন মাছ ধরতে যাই তখন অবশ্য কিনে নিতে হয়।

দৌঁড়ানোর সময় ভেসে আসছিল গ্রামের ছবি, পুকুরে ছিপ ফেলে বসে থাকা…আরো কত কি…ভাবনাগুলো এই দিনের শেষে লিখতে বসে অনেকটাই আর সেভাবে লিখতে ইচ্ছে করছে না। তখন যদি লিখে ফেলা যেত তো এখন পড়লে হয়তো খুব ছেলেমানুষী বলে মনে হত।

এখন আবার মনে পড়ছে খুব…

Leave a Reply